কলকাতার বুকে আকাশছোঁয়া কিছু রুফটপ রেস্তরাঁ : প্রেম নিবেদন এবং ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের সেরা ঠিকানা

Tripoto

প্রেমের শহর কলকাতা। শহরের প্রতিটি আবরণে, নিঃশ্বাসে রয়েছে এক নিবিড় রোমান্টিক অনুভূতি। ভালোলাগা, ভালোবাসার সঙ্গে নস্টালজিয়ার মিলনে শহরের পরতে পরতে আছে যেন অন্য এক একান্ত আপন শহর, যা শুধু ভাগ করে নেওয়া যায় প্রিয়জনের সঙ্গেই। কিন্তু বাঙালির প্রেম মানেই তো তার সঙ্গে জড়িয়ে আছে পেটপুজোর অভ্যর্থনা। প্রিয়জনের হাতে হাত রেখে যদি শহর জুড়ে এটা ওটা ভাল মন্দ খেয়ে বেড়ানো না যায়, তাহলে আর কীসের প্রেম। তাই প্রেম হয়ে উঠুক মাখো মাখো পেটুক প্রেম, আর খুঁজে নিন এমন কিছু নতুন রেস্তরাঁর সন্ধান যেখানে পাবেন রুফটপ ডাইনিং-এর সুব্যবস্থা, থাকবে নিবিড়ে নিভৃতে ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের সুযোগও।

Photo of কলকাতার বুকে আকাশছোঁয়া কিছু রুফটপ রেস্তরাঁ : প্রেম নিবেদন এবং ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের সেরা ঠিকানা 1/1 by Aninda De
কলকাতা শহরের বুকে রুফটপ রেস্তোরাঁর নিদর্শন (ছবি সংগৃহীত)

রুফটপ রেস্তরাঁর বৈশিষ্ট্য

রুফটপ রেস্টুরেন্টে আপনি পাবেন অসাধারণ এমবিয়েন্স। আকাশের নিচে, বহুতলের ওপর থেকে আপনি দেখতে পাবেন কলকাতা স্কাইলাইনের অনবদ্য রূপ। সঙ্গে থাকবে দেশি বিদেশি নানা কুইজিনের মনমাতানো নানারকম খাবার। ইনস্টাগ্রাম ফ্রেন্ডলি এই রেস্তরাঁগুলোতে পাবেন ক্যান্ডেল লাইট ডিনার করার সুযোগও। তাই প্রিয়জনকে নিয়ে যাওয়ার আর কথোপকথনে ডুবে যাওয়ার জন্যে কলকাতার এই রুফটপ রেস্তরাঁগুলি আপনাদের জন্যে একেবারে পারফেক্ট।

৩১ ৩২, ওয়েস্টিন কলকাতা

কলকাতা স্কাইলাইনের গগনচুম্বী অট্টালিকাদের মধ্যে একেবারেই প্রথম সারিতে থাকবে রাজারহাটের ওয়েস্টিন লাক্সারি হোটেলের বাড়িটি। সেই বাড়ীর ৩১ আর ৩২ তলায় খুলে গেছে রুফটপ ডাইনিংয়ের নতুন আস্তানা, যার নামও ৩১ ৩২। অসাধারণ অ্যামবিয়েন্স এবং উপর থেকে প্রায় সমগ্র কলকাতার ভিউ দেখতে পাওয়া এই রেস্তরাঁর অন্যতম আকর্ষণ। সাথে আছে ওয়েস্টিনের কর্মচারীদের নজরকাড়া আপ্যায়ন। প্রিয়জনকে নিয়ে যদি ক্যান্ডেল লাইট ডিনার সেলিব্রেট করতে হয়, তাহলে ৩১ ৩২ আপনার জন্যে সেরা ঠিকানা।

ব্লু এন্ড বিয়ন্ড, এস্প্ল্যানেড

হগ সাহেবের বাজারে ভাল মন্দ কেনাকাটা করা প্রেমিক প্রেমিকাদের প্রায় বাধ্যতামূলক কো-ক্যারিকুলার এক্টিভিটি। তার মাঝে দু'দণ্ড জিরিয়ে নিয়ে একটু গলা ভেজাতে চাইলে লিন্ডসে হোটেলের ৯ তলার ব্লু এন্ড বিয়ন্ড-এর থেকে ভাল জায়গা নেই। আয়েশ করে বসে বিয়ারের গ্লাসে চুমুক দিয়ে অর্ডার করতে পারেন সিজলার বা চাইনিজ, সঙ্গে থাকুক কাবাব আর ককটেল। সন্ধে বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনার টেবিলেই চলে আসবে ক্যান্ডেল লাইটের ব্যবস্থা। আর চোখে পড়বে আলো আঁধারীতে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের মায়াবী রূপ।

কোথায় : হোটেল লিন্ডসে, লিন্ডসে স্ট্রিট, নিউ মার্কেট এলাকা

কী খাবেন : মটন মির্চ ভুনা সিজলার, চিকেন আ লা কীভ, ফ্লেমিং ল্যাম্বরগিনী ককটেল

নোয়ার, হোটেল গোল্ডেন টিউলিপ

রুফটপ ডাইনিংয়ের মতো বিলাসের আরেক নাম রুফটপ সুইমিংপুল। কেমন হত যদি একই সঙ্গে পাওয়া যেত উভয়ের আনন্দ? সল্ট লেকের হোটেল গোল্ডেন টিউলিপের রুফ টপের নোয়ার রেস্টুরেন্টে পাবেন নানা রকম কুইজিনের অসাধারণ খাবারের সমাহার, সঙ্গে থাকবে রুফটপ পুল ও জ্যাকুজিতে উপভোগ করার সুযোগ। প্রেম, খাবার দাবার আর জলকেলি মিলিয়ে একেবারে উষ্ণ এক আবেশের স্পর্শ পেতে চলে আসতে পারেন এখানে।

কোথায় : ডি.ডি ১৯, সেক্টর ১, সল্টলেক

কী খাবেন : ডাল বাটি চুরমা, বারবিকিউ চিকেন পিজ্জা, তন্দুরি মোমো

হোয়াটস আপ, সাদার্ন অ্যাভেনিউ

আধুনিক শহুরে গতিময়তা আর যৌবনের উচ্ছল তরঙ্গের মিশেল হোয়াটস আপ ক্যাফের ছাদের উপরের আউটডোর রুফটপ ডাইনিং এরিয়াতে। কলকাতার ট্রেন্ডি টিন টুইনরা একডাকে চেনে এই অত্যন্ত জনপ্রিয় রেস্তরাঁর সব খবর। লাউঞ্জ, ক্লাব, লাইটস আর লাইভ মিউজিকের পাশাপাশি রয়েছে পা ডুবিয়ে রিল্যাক্স করার জন্যে অসাধারণ এক জ্যাকুজি। নানারকম নতুন নতুন খাবার দাবারের পাশাপাশি, হোয়াটস আপ ক্যাফের অন্যতম আকর্ষণ হল এখানে প্রিয়জনের সাথে ঘণ্টার পর ঘণ্টা নিশ্চিন্তে হ্যাং আউট করার সুযোগ। তবে যেহেতু অনেক ভিড় হয়, তাই আগে থেকে রিসার্ভ করে রাখা ভাল।

ওজোরা, অ্যাক্রপলিস মল

কলকাতার রুফটপ ডাইনিং সিনে নতুন গতি নিয়ে এসেছিল অ্যাক্রপলিস মলের ছাদে অবস্থিত ওজোরা রেস্তরাঁ। বিলাস এবং বিনোদনের সম্মেলনে ঝাঁ চকচকে ওজোরা হয়ে উঠেছে শহরের অন্যতম লেট নাইট রুফটপ ডেস্টিনেশন। কুড়ি তলার উপরের এই রেস্তোরাঁ থেকে দেখে নিতে পারেন রাতের মোহময়ী কলকাতার মায়াবী রূপ। আছে প্রাইভেট সিটিং এরিয়া, আছে লাউঞ্জ এবং পুল সাইড সিটিং স্পেস। প্রিয়জনের চোখে চোখ রাখতে সাহায্য করবে ওজোরার নানা সাহসী ককটেল। তাই কন্টিনেন্টাল, ইন্ডিয়ান, ইতালিয়ান এবং ফিউশন ফুডের সাহচর্যে বেড়ে উঠুক প্রেমের উষ্ণতার পারদ।

কোথায় : অ্যাক্রপলিস মল, রাজডাঙ্গা মেন রোড, কসবা

কী খাবেন : চিকেন এন্ড বেকন পিজ্জা, সমুদ্রি রিসোটো, ভেটকি চেদার চিলি, ব্ল্যাক ডিভা ককটেল, দ্য মিডি ককটেল

বাক্কারা, ভবানীপুর

প্রেম করতে করতে চলে যেতে চান আরব বেদুইনের দরবারে? শামিয়ানার তলায় বসে সুখটান দিতে চান শিশায়ে বা হুঁকোয়ে? তাহলে ভবানীপুরের বাক্কারা লাউঞ্জ আপনার জন্যে অপেক্ষারত। ট্র্যাডিশনাল চেয়ার টেবিল আছে খুব অল্প পরিমাণে, বাকি পুরো জায়গা জুড়ে রয়েছে গদি পাতা, পর্দা ঘেরা, শামিয়ানার তলায় - যেন মরুদ্যানের মাঝের এক বিলাসবহুল তাঁবুর মাঝে আপনার খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা। অতুলনীয় সার্ভিসের সঙ্গে সঙ্গে রয়েছে ইন হাউস ডি.জে।

দ্য ওয়াইস আউল স্টেকহাউস, হিন্দুস্তান পার্ক

দক্ষিণ কলকাতার ছিমছাম হিন্দুস্তান পার্ক এলাকার ঠিক মাঝে শুরু হয়েছিল জনপ্রিয় ওয়াইস আউল ক্যাফে। বর্তমানে সেই বাড়ির ছাদে তৈরি হয়েছে ওয়াইস আউলেরই একটি স্টেকহাউস - অর্থাৎ যেখানে আপনি পাবেন নানা ধরণের মাংসের স্টেক, সাথে মনের মতো নানারকম সাইডডিশ। কাঠের টেবিল চেয়ারে বসে আসতে আসতে সূর্যাস্ত দেখতে দেখতে অপেক্ষা করতে পারেন রাত আরো গভীর হওয়ার। এখানে নানা ধরনের মিউজিক্যাল ইভেন্ট ও আয়োজিত হয়ে থাকে। কন্টিনেন্টাল এবং মার্কিন স্টাইল কুইজিনের হাত ধরে প্রেমের পরশে একে অপরকে খুঁজে পেতে প্রিয়জনকে নিয়ে চলে আসতে পারেন এখানেই।

কোথায় : ওয়েস্টিন কলকাতা, নিউটাউন, রাজারহাট

কী খাবেন : মটন কষা স্লাইডার্স, ক্রিসপি পর্ক বেলি, রাভিওলি পাস্তা, ব্ল্যাক গোল্ড ককটেল

দু জনের আনুমানিক খরচ : ২৫০০ থেকে শুরু

দু জনের আনুমানিক খরচ : ১৬০০ থেকে শুরু

@৪৯, বিবেকানন্দ রোড

নর্থ কলকাতার কলেজ পড়ুয়াদের জন্যে অন্যতম সুখবর হল সাধ্যের মধ্যেই এই রুফটপ ডাইনিং রেস্তরাঁর অস্তিত্ত্ব। উত্তর কলকাতার বনেদী বাড়ির গাড়িবারান্দার উপরে সাজিয়ে তোলা হয়েছে @৪৯ এর ওপেন এয়ার খাওয়া দাওয়ার জায়গাটা। এদের সবথেকে আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য হল দেশ বিদেশের নানা কুইজিন সাধ্যের মধ্যে এনে হাজির করা। তাই পকেট ফুটো না করেও যে রোমান্টিক ওপেন এয়ার ডাইনিং করতে পারেন, সেটা উপভোগ করতে গেলে আসতেই হবে @৪৯ এর গাড়িবারান্দায়।

কোথায় : ১১৬ বিবেকানন্দ রোড, বিবেকানন্দ রোড ক্রসিং থেকে মানিকতলার দিকে যাওয়ার পথে ডানদিকে

কী খাবেন : বিরিয়ানি কম্বো মিল, প্ৰণ ওরিয়েন্টাল সিজলার, থাই ফ্রায়েড ফিশ

দু'জনের আনুমানিক খরচ : ৮০০ থেকে শুরু

দু'জনের আনুমানিক খরচ : ১৫০০ থেকে শুরু

কোথায় : ১২২ এ, সাদার্ন অ্যাভেনিউ

কী খাবেন : চিকেন রুলাড, মুর্গ রোস্ট - দক্ষিণী স্টাইল, গ্রিল্ড ভেটকি উইথ লেমন বাটার সস, আলিও অলিও পাস্তা, ডাব পাঞ্চ ককটেল, জিন ইন এ মটকা ককটেল

দু'জনের জন্যে আনুমানিক খরচ : ১২০০ থেকে শুরু

দু'জনের জন্যে আনুমানিক খরচ : ২৫০০ থেকে শুরু

কোথায় : ২, ডক্টর রাজেন্দ্র রোড, ভবানীপুর

কী খাবেন : চিকেন টাকো, হারিষা চিকেন, ডবল ডেকার পিজ্জা

দু'জনের জন্যে আনুমানিক খরচ : ১০০০ থেকে শুরু

কোথায় : ৬৬/২বি পূর্ণ দাস রোড, হিন্দুস্তান পার্ক

কী খাবেন : ব্যাংগার্স এন্ড ম্যাশ, বেকন সসেজ, পর্ক রিবস, টেন্ডারলয়েন স্টেক, ফিশ ফিলে স্টেক

দু'জনের জন্যে আনুমানিক খরচ : ১০০০ থেকে শুরু

তাহলে আর অপেক্ষা কিসের? ক্যান্ডেল লাইটের আলোয় রাতের কলকাতার শোভা দেখতে পৌঁছে যান এই রুফটপ রেস্তরাঁগুলোতে!

নিজের বেড়ানোর অভিজ্ঞতা ট্রিপোটোর সঙ্গে ভাগ করে নিন আর সারা বিশ্ব জুড়ে অসংখ্য পর্যটকদের অনুপ্রাণিত করুন।

বিনামূল্যে বেড়াতে যেতে চান? ক্রেডিট জমা করুন আর ট্রিপোটোর হোটেল স্টে আর ভেকেশন প্যাকেজে সেগুলো ব্যবহার করুন।