কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার...

Tripoto

রাতের প্রকৃতিতে উজ্জ্বল পরিবেশ (ছবি সংগৃহীত)

Photo of Biswa Bangla Gate Restaurant, Action Area I, Newtown, New Town, West Bengal, India by Surjatapa Adak

পশ্চিমবঙ্গে ঝুলন্ত রেস্তরাঁর ধারণাটা বিশ্ববাংলা গেটের হাত ধরেই প্রকাশ পেয়েছে । বর্তমানে বাঙালির প্রাণের শহর কলকাতার নিউটাউন অঞ্চলের প্রধান আকর্ষণ হয়ে উঠেছে বিশ্ববাংলা গেট ।

বিশ্ববাংলা রেস্তরাঁর বাহ্যিক গঠন

বাহ্যিক সৌন্দর্যও উল্লেখযোগ্য (ছবি সংগৃহীত)

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

এই রেস্তরাঁ তথা মিউজিয়ামটির উচ্চতা প্রায় ৫৫ মিটার । এটি পশ্চিমবঙ্গ হাউসিং ইনফরাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন (HIDCO) দ্বারা নির্মিত । সম্পূর্ণ রেস্তোরাঁটি নির্মাণকার্যের সময় মোট ৭০টন স্টিল ব্যবহার করা হয়েছে ।এছাড়াও এই স্তম্ভটির নির্মাণের জন্য খরচ হয়েছে প্রায় ২৫কোটি টাকা ।দর্শকদের প্রবেশের জন্য এখানে একটি টানেল নির্মাণ করা হয়েছে, রাজপথ থেকে যার উচ্চতা প্রায় ২৫মিটার । মূল রেস্তরাঁয় পৌঁছনোর জন্য লিফটের ব্যবস্থা রয়েছে।

ঝুলন্ত রেস্তরাঁর অন্দরসজ্জা

রেস্তরাঁর অন্দর সজ্জাটিও ভাল বেশ (ছবি সংগৃহীত)

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

রেস্তরাঁর প্রবেশ পথে কলকাতা শহর এবং বাংলার সংস্কৃতি সম্পর্কিত বেশ কিছু আলোকচিত্রের দর্শন পাবেন, যা বাঙালীর বাঙালিয়ানাকে পুনঃজাগরিত করবে । আর অবাঙালি মানুষদের বাংলার অজানা সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য সম্পর্কে অবহিত করবে ।

ছবি সংগৃহীত

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

ছবি সংগৃহীত

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

বিশ্ববাংলা রেস্তরাঁ সম্পর্কিত কিছু তথ্য

নির্দিষ্ট সময়ের ভিত্তিতে এই রেস্তরাঁয় প্রবেশ করা যায় । একটা স্লটে ৫০জন অথিতির প্রবেশের অনুমতি রয়েছে । এখানে ইন্ডিয়ান, চাইনিস, কন্টিনেন্টাল খাবার উপলব্ধ আছে । আর সন্ধে ৭টা থেকে ৮টা এবং রাত ৯ টা থেকে ১০.৩০ ফাইন ডাইন ক্যাফেরেরিয়ার ও সুলভ ব্যবস্থা আছে ।

শহরের ছবি (সংগৃহীত)

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

এই ক্যাফেরেরিয়াগুলি মূলত ক্যাফে একান্তে এবং স্মল কুরিও শপ দ্বারা পরিচালিত হয় ।এখানে কফির খরচ মাত্র ৩০ টাকা, এর সঙ্গে স্ন্যাক্স হিসেবে রয়েছে চিস পাফ, প্রন কাটলেট, পাইন আপেল পেস্ট্রি ইত্যাদি ।

রকমারি খাবার (সংগৃহীত)

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

লাঞ্চে এখানে বুফের ব্যবস্থা রয়েছে, যার মাথাপিছু খরচ ৫০০টাকা + ট্যাক্স । এছাড়াও অন্যান্য খাবার ও উপলব্ধ আছে । পরিশেষে জানিয়ে রাখি,এই রেস্তোরাঁর ফিশ কাবাব, ডাব আইসক্রিম এবং নলেন গুড়ের আইসক্রিম চেখে দেখতে কিন্তু অবশ্যই ভুলবেন না ।

বিশ্ববাংলা রেস্তরাঁর বৈশিষ্ট্য

বিশ্ববাংলা গেটের পারিপার্শ্বিক পরিবেশ (ছবি সংগৃহীত)

Photo of কলকাতার প্রথম ঝুলন্ত রেস্তরাঁ, মোটামুটি রেঞ্জের মধ্যেই পেয়ে যাবেন বাহারি খাবার... by Surjatapa Adak

১. ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ বন্ধু বান্ধবদের সঙ্গে হ্যাংআউট করার সেরা ঠিকানা হতে পারে ।

২. আপনার জীবনের বিশেষদিনে রোমান্টিক ডিনারের জন্য এই রেস্তরাঁটিকে বেছে নিতে পারেন ।

৩.টানেলের সাহায্যে আপনি সমগ্র নিউ টাউন অঞ্চলের ৩৬০ ডিগ্রি দৃশ্য উপভোগ করতে পারেন ।

৪. পড়ন্ত বিকেলে এই রেস্তোরাঁ থেকে সূর্যাস্ত দর্শনের অভিজ্ঞতাটা অনন্য হয়ে উঠতে পারে ।

৫. ফেরার পথে বিশ্ব বাংলা গেটের কুরিও শপ থেকে পরিবারের জন্য কিছু উপহার ও কিনে নিতে পারেন ।

বিশ্ব বাংলা গেটে প্রবেশের জন্য টিকিট বুকিং পদ্ধতি

'Book my show' বা ' HIDCO' ওয়েবসাইট থেকে বিশ্ব বাংলা গেটে প্রবেশের অনলাইনে টিকিট বুকিং করতে পারেন । শুধুমাত্র দর্শনের জন্য টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা ।

এক্ষেত্রে আপনি আপনার পছন্দ মতো দিনে নির্দিষ্ট সময়ের ব্যাতিরেকে এখানে ভ্রমণ করতে পারেন ।শুধুমাত্র দর্শনের জন্য এটি ১২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা আছে । তবে মাত্র ৪৫ মিনিটের জন্যই ভ্রমণের সুযোগ রয়েছে । ভ্রমণের সময় হলো দুপুর ১২ টা - ১টা, ১টা - ২টো, ২টো - ৩টে, ৩টে - ৪টে ।

কীভাবে যাবেন

ট্রেনে - হাওড়া স্টেশন থেকে গাড়ি ভাড়া করে মাত্র ৪০ মিনিট দূরত্ব অতিক্রম করে পৌঁছে যেতে পারেন বিশ্ব বাংলা গেট।

সড়কপথে - কলকাতার যে কোনও স্থান থেকেও গাড়ি ভাড়া করে সড়কপথে পৌঁছে যেতে পারেন বিশ্ব বাংলা গেট ।

নিজের বেড়ানোর অভিজ্ঞতা ট্রিপোটোর সঙ্গে ভাগ করে নিন আর সারা বিশ্ব জুড়ে অসংখ্য পর্যটকদের অনুপ্রাণিত করুন।

বিনামূল্যে বেড়াতে যেতে চান? ক্রেডিট জমা করুন আর ট্রিপোটোর হোটেল স্টে আর ভেকেশন প্যাকেজে সেগুলো ব্যবহার করুন।